এযাবৎ 45 টি গ্রন্থ সংযোজিত হয়েছে।
১৩৪০ সালে (১৯৩৩ খ্রিস্টাব্দের ২৭শে জুন) ‘গুলবাগিচা’ গ্রন্থাকারে প্রকাশিত হয়। প্রকাশক : দি গ্রেট ইস্টার্ণ লাইব্রেরি, ১৫ নং কলেজ স্কোয়ার, কলিকাতা। ৩৩/এ মদন মিত্র লেন, কলিকাতা, বাণী প্রেস হইতে শ্রীললিতমোহন মল্লিক দ্বারা মুদ্রিত। ১২ + ১০৮ পৃষ্ঠা। মূল্য : এক টাকা।
‘সোনার মেয়ে সোনার মেয়ে’ ১৩৩৯ অগ্রহায়ণের, ‘বুকে তোমায় নাই বা পেলাম’ ১৩৩৯ কার্তিকের, ‘আমার বিজন ঘরে হেসে’ ‘অভিমানী’ শিরোনামে ১৩৩৯ পৌষের এবং ‘একলা ভাসাই গানের কমল’ ১৩৪০ আষাঢ়ের ‘মাসিক মোহাম্মদী’তে প্রকাশিত হয়।
‘বাদল বায়ে মোর নিভিয়া গেছে বাতি’ ১৩৩৯ আশ্বিনের এবং ‘দুধে আলতায় রঙ যেন তার ১৩৩৯ কার্তিকের সওগাতে বাহির হয়।
‘অচেনা সুরে অজানা পথিক’ গানটির কবির স্বহস্তলিখিত পাণ্ডুলিপির প্রতিলিপি ১৩৬৪ মাঘের ‘মাহেনও’-এ মুদ্রিত হয়।
‘তুমি বর্ষায় ঝরা চম্পা’, ‘তোমার আকাশে উঠেছিনু চাঁদ’ এবং ‘পাষাণ-গিরির বাঁধন টুটে’ ১৩৪০ বৈশাখ-শ্রাবণের চতুর্মাস্য ‘বুলবুল’ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।
‘কাঁদিছে তিমির-কুন্তলা সাঁঝ’ ১৩৪১ শ্রাবণের ‘সবুজ বাঙলা’য় বাহির হয়।
১৯৩২ খ্রিস্টাব্দের ২৫শে ডিসেম্বর রবিবার সকালে নজরুল ইসলাম ‘এস এস রসলোকবিহারী’ গাহিয়া কলিকাতা এলবার্ট হলে অনুষ্ঠিত বঙ্গীয় মুসলমান সাহিত্য সম্মেলনের পঞ্চম অধিবেশনের উদ্বোধন করেন এবং ২৬শে ডিসেম্বর সোমবার সন্ধ্যায় ‘তোমাদের দান তোমাদের বাণী পূর্ণ করিল অন্তর’ গাহিয়া সম্মেলনের ‘মধুরেণ সমাপয়েত’ করেন। উক্ত গীতিদ্বয় যথাক্রমে ‘উদ্বোধন-গীতি’ ও ‘বিদায়-গীতি’ শিরোনামে ১৩৩৯ মাঘের ‘মাসিক মোহাম্মদীতে পত্রস্থ হয়। ‘উদ্বোধন-গীতি’ ১৩৩৯ পৌষের এবং ‘বিদায়-গীতি’ ১৩৩৯ মাঘের মোয়াজ্জিনে’ও মুদ্রিত হয়।
‘শিউলিফুলের মালা দোলে’ ১৩৪১ আশ্বিনের ‘ছায়াবীথি’-তে বাহির হয়।
‘এল শোকের সেই মোহররম’ ১৩৪০ জ্যৈষ্ঠের ও ‘ঈদুজ্জোহার চাঁদ হাসে ঐ’ ১৩৪০ বৈশাখের ‘মাসিক মোহাম্মদী’তে প্রকাশিত হয়। এই দুইটি গজল মরহুম মোহাম্মদ কাসেম মল্লিক হিজ মাস্টারস ভয়েসে রেকর্ড করেন।
‘তওফিক দাও খোদা ইসলামে’ ১৩৩৯ ফাগুনের ও ‘বাজিছে দামামা বাঁধ রে আমামা’ ১৩৩৯ চৈত্রের ‘মাসিক মোহাম্মদীতে বাহির হয়। ‘বহিছে সাহারায় শোকের ‘লু-হাওয়া’ এবং ‘তওফিক দাও খোদা ইসলামে’ মরহুম আব্বাসউদ্দীন আহমদ রেকর্ড করেন।
জন্মশতবর্ষ সংস্করণের সংযোজন
নজরুলের গীতিগ্রন্থ ‘গুল-বাগিচা’ প্রথম প্রকাশিত হয় ১৩৪০ বঙ্গাব্দে, ইংরেজি ১৯৩৩ খ্রিস্টাব্দে। দি গ্রেট ইস্টার্ন লাইব্রেরী, ১৫ নং কলেজ স্কোয়ার, কলকাতা থেকে প্রকাশিত প্রথম সংস্করণে, ‘গুলবাগিচা’র অন্তর্গত গানগুলির ধারাক্রমের সঙ্গে গ্রন্থের সূচিপত্রের মিল নেই। সূচিপত্রে গানগুলির প্রথম পংক্তি মুদ্রিত হয়েছে বাংলা বর্ণমালার ক্রম অনুসারে। তবে, ‘নজরুল রচনাবলী’র অন্তর্গত ‘গুলবাগিচা’র গানগুলির ধারাক্রম আর ১৩৪০ বঙ্গাব্দে প্রকাশিত প্রথম সংস্করণ ‘গুলবাগিচা’র অন্তর্গত গানগুলির ধারাক্রম এক ও অভিন্ন। আমরা এখানে ‘গুল-বাগিচা’-র প্রথম সংস্করণের সূচিপত্র সম্পূর্ণ উদ্ধৃত করে দিলাম।
গুলবাগিচা সূচী
আপনার জন্য প্রস্তাবিত
ভালো লাগা জানান
Scroll Up