এযাবৎ 50 টি গ্রন্থ সংযোজিত হয়েছে।
(দুপুর বেলায় খোকারা সব ছাদে গিয়ে কিতকিত খেলছে)
ন্যাড়া:
ছেল দিগ দিগ দিগ দিগ দিগ দিগ দিগ।
হেবো:
আমাদের মড়া মরেছে, কাঠ কুড়োতে যাবি কে,
আমাদের মড়া মরেছে, কাঠ কুড়োতে যাবি কে।
হরে:
মোড়,মোড়, মোড়!
পুঁটো:
ছেলকপাটি বৃন্দাবন,
ছেলকপাটি দাঁত কপাটি
ন্যাড়া মাথায় মারব চাঁটি।
আম পাতা জোড়া জোড়া—
মারব চাবুক চড়ব ঘোড়া—
হাডু ডুডু ডুডু…..
মা:
ও পুঁটো, ও হেবো, ও হরে! দুপুর রোদ্দুরে বাঁদর ছেলে কিত কিত খেলা হচ্ছে। শিগগির নেমে আয়!
হেবো:
এই ন্যাড়া, মা ডাকছে, শিগগির চ।
মা:
কতদিন বলেছি, দুপুর বেলা ঘরে বসে বসে পড়বি, শিগগির বই নিয়ে বস!
হেবো:
ওরে মায়ের বাবারে! ছাড় ছাড়, কান গেল, কান গেল! ছাদে খেলছিলুম কোথায়, ছাদে তো জুজুবুড়ি তাড়াচ্ছিলুম, তোমায় ধরতে এসেছিল।
খুকি:
মা গো, তোরে সত্যি বলি, দেখে এলুম ছাদে গিয়ে
মা-ধরা এক জুজুবুড়ি বসে আছে ঝুলি নিয়ে।
বললে, “যে মা খোকায় ধরে যখন তখন দুধ খাওয়ায়
চুলের মুঠিু ধরে তার, তিন সের দুধ খাওয়াই তায়।”
খবরদার মা, দুধ খেতে বলিসনে কো দোর দিয়ে।
হেবো:
বললে বুড়ি, “জল ঘাঁটলে বকে খোকায় যে সব মায়
হাবুডুবু খাওয়াই তাদের ডুবিয়ে কাদা-জল-ডোবায়!”
খবরদার মা, বকিসনে আর খেললে আমি জল নিয়ে।
খুকি:
না বেড়াতে দিয়ে রোদে, ধরে যে মা পাড়ায় ঘুম,
বললে বুড়ি, “বস্তায় পুরে লাগাই তারে দুমাদ্দুম।”
খবরদার মা, ঘুম পাড়াসনে, বেড়ালে রোদে গিয়ে।
মা:
দাঁড়া, তোদের জুজুবুড়ি দেখাচ্ছি। এই ন্যাড়া, হেবো, হরে! শিগিরি বই নিয়ে বস। এই খুকি, ঘুমাবি আয়।
ঘুম আয় ঘুম! ঘুম আয় ঘুম!
নিশুতি দুপুর, নিশীথ নিঝুম।
ঘুম আয় ঘুম, ঘুম আয় ঘুম!
টুলটুল ঝিঙে ফুল ঘুমে ঝিমায়,
ঝুমকো লতায় ঝিঁঝি আলসে ঘুমায়।
খোকনের চোখে দেয় ঘুম-পরি চুম।
ঘুম আয় ঘুম॥
পুতুলের বিয়ে সূচী
আপনার জন্য প্রস্তাবিত
ভালো লাগা জানান
Scroll Up