এযাবৎ 50 টি গ্রন্থ সংযোজিত হয়েছে।
১৩৩৮ সালের কার্তিক মাসে ‘শিউলীমালা’ গ্রন্থাকারে প্রকাশিত হয়। প্রকাশক: ডি. এম. লাইব্রেরি; ৬১ কর্ণওয়ালিশ ষ্ট্রিট, কলিকাতা। মুদ্রাকর: শ্রীশশিভূষণ পাল, মেটকাফ প্রেস, ১৫ নং নয়ানচাঁদ দত্ত ষ্ট্রিট, কলিকাতা। ১১২ পৃষ্ঠা; মূল্য এক টাকা।
‘পদ্মগোখরো’ মেটকাফ প্রেস-কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রকাশিত সাপ্তাহিক ‘দুন্দুভিতে’ পত্রস্থ হয়।
‘জিনের বাদশা’ ১৩৩৭ বৈশাখ-জ্যৈষ্ঠের, ‘অগ্নিগিরি’ ১৩৩৭ আষাঢ়ের এবং ‘শিউলীমালা’ ১৩৩৭ শ্রাবণের ‘সওগাত’-এ প্রকাশিত হয়।
‘অগ্নিগিরি’ ও ‘শিউলীমালা’ সম্বন্ধে পাকিস্তান পাবলিকেশন্‌স কর্তৃক প্রকাশিত ‘নজরুল-পরিচিতি’ নামক পুস্তকে অন্তর্ভূক্ত মৎলিখিত (কবি আবদুল কাদির) ‘কবির জীবন-কথা’ ও ‘নজরুলের ছোটগল্প’ শীর্ষক প্রবন্ধদ্বয়ে বলা হইয়াছে—

‘নজরুলের অগ্নিগিরি নামক সুবিখ্যাত গল্পে বীররামপুর গ্রামের উল্লেখ আছে; বোধ হয় ‘দরিরামপুর’ নামটিই গল্পে বীররামপুর হয়েছে।…

‘নজরুল কৈশোরে মৈমনসিংহের দরিরামপুর গ্রামে কিছুদিন পড়াশোনা করেছিলেন; তাঁর তৎকালীন জীবনের যৎকিঞ্চিৎ ছায়া এ গল্পে আছে—এ তথ্য তাঁরই মুখে একদা শুনেছিলাম…।

‘১৯২৮ সালের মার্চ মাসের প্রথম সপ্তাহে নজরুল ঢাকা মুসলিম সাহিত্য-সমাজের দ্বিতীয় বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধন করেন; … সে-সময় অধ্যক্ষ শ্রীসুরেন্দ্রনাথ মৈত্র ও অধ্যাপক কাজী মোতাহার হোসেনের সঙ্গে তাঁর ঘনিষ্ঠতা ঘটে; সেই সৌহার্দ্যের স্মৃতি তাঁর বিখ্যাত ‘শিউলীমালা’ গল্পে কিছু ছায়া ফেলেছে।‘

—[নজরুল পরিচিতি; তৃতীয় সংস্করণ, ৩, ৮৩ ও ১৬ পৃষ্ঠা]
শিউলীমালা সূচী
আপনার জন্য প্রস্তাবিত
ভালো লাগা জানান
Scroll Up