এযাবৎ 50 টি গ্রন্থ সংযোজিত হয়েছে।
(পূর্ববঙ্গের ভাটিয়াল সুরে)
ওরে মাঝি ভাই!
ওরে সাম্পানওয়ালা ভাই!
তুই কি দুখ পাইয়া কূল হারাইলি অকূল দরিয়ায়।।
তোর ঘরের রশি ছিঁইড়া রে গেল ঘাটের কড়ি নাই,
তুই মাঝ দরিয়ায় ভাইসা চলিস সাম্পান ভাসাই।
ও ভাই দরিয়ায় আয়ে জোয়ার ভাটিরে
তোর ঐ চক্ষের পানি চাই।।
তোর চোখের জল ভাই ছাপাইতে চাস নদীর জলে আইসা,
শেষে নদীই আইল চক্ষে রে তোর তুই চলিলি ভাইসা,
ও তুই কলস দেইখা নামলি জলে রে
এখন ডুইবা দেখিস কলস নাই।।
তুই কূলে যাহার কূল না পেলি তারে অগাধ জলে
কেন খুঁইজা মরিস ওরে পাগল সাম্পান বাওয়ার ছলে,
ও ভাই দুই ধারে এর চোরাবালু রে
তোর হেথায় মনের মানুষ নাই।।
কী হইব লাল বাওটাবাওটা : পান। তুইল্যা সাম্পানের উপর।
তোর বাওটায় যত লাগব হাওয়া রে
ও ভাই ঘর হইব তোর ততই পর।।
তোর কী দুঃখ ভাই ছাড়াইতে চাস বাওটারে রাঙাইয়া,
এবার পরান ভইর‍্যা কাঁইদ্যা নে ভাই অগাধ জলে আইয়া,
ও ভাই তোর কাঁদনে উইঠা আসুক রে
ওই নদীর থনে বালুর চর।।
তুই কীসের আশায় দিবিরে ভাই কূলের পানে পাড়ি ;
তোর দিয়াদিয়া : প্রদীপ। সেথা না জ্বলে ভাই আঁধার দে ঘরবাড়ি;
তুই জীবন কূলে পেলি না তায় রে
এবার মরণ জলে তালাশ কর।।
তোমায় কূলে তুইলা বন্ধু আমি নামছি জলে।
আমি কাঁটা হইয়া রই নাই বন্ধু তোমার পথের তলে।।
আমি তোমায় ফুল দিয়াছি কন্যা তোমার বন্ধুর লাগি
যদি আমার শ্বাসে শুকায় সে ফুল তাই হইলাম বিবাগি।
আমি বুকের তলায় রাখছি তোমায় গো
পইর‍্যা শুকাইছি না গলে।।
যে দেশে তোমার ঘর রে বন্ধু সে দেশ থনে আইসা
আমার দুখের সাম্পান ছাইড়া দিছি চলতেছে সে ভাইসা,
এখন যে দেশে নাই তুমি বন্ধু গো
আমি সেই দেশে যাই চলে।
আমি সেই দেশে যাই চলে।।
ঝড় সূচী
আপনার জন্য প্রস্তাবিত
ভালো লাগা জানান
Scroll Up